1. admin@amaderjamalganj.com : amaderjamalganj : amaderjamalganj com
বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মছদ্দর আলী পীরের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ – আমাদের জামালগঞ্জ
মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:২৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সাহিত্য বিকাশে মোরা প্রত্যয়দীপ্ত"আমাদের জামালগঞ্জ " হাওর সাহিত্যের আয়না - আপনিও লিখুনঃ আপনিও হয়ে যান আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকার একজন নিয়মিত লেখক।যে কোনো ধরনের গল্প,কবিতা পাঠিয়ে দিন আমাদের কাছে আমরা আপনার লেখাটি আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকায় আপনার নাম উল্লেখপূর্বক প্রকাশ করব। E-mail: amaderjamalganj@gmail.com

বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মছদ্দর আলী পীরের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী আজ

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ৭ মে, ২০২০
  • ১৫৩ বার পড়া হয়েছে

আমির হোসেন, তাহিরপুর প্রতিনিধি::

তাহিরপুর উপজেলার স্বনামধন্য বিদ্যাপীঠ বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের মানুষ গড়ার কারিগর শিক্ষক মছদ্দর আলী পীরের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী আজ।

শিক্ষক মছদ্দর আলী পীর গত বছর আজকের এই দিনে (৭ই মে) সবাইকে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। ব‍্যাক্তিগত জীবনে উনি একজন সৎ, সাহসি, উদ‍্যমি, শিক্ষিত, নম্র, ভদ্র, বিনয়ী, সহজ সরল, মানুষ ছিলেন । তিনি সুনামগঞ্জ সরকারি জুবিলী উচ্চ বিদ‍্যালয় থেকে এস.এস.সি, এবং সিলেট এম.সি. কলেজ থেকে এইচ, এস,সি ও স্নাতক পাস করেন। স্কুলের সহপাঠী বন্ধুদের মধ্যে জনাব আলহাজ্ব আবু আলী মো: সাজ্জাদ হোসাইন (এড্) এবং জনাব বাবু সুকুমার চৌধুরী (এড্ ) অতন্ত ঘনিষ্ঠ বন্ধু ছিলেন।

লেখা পড়া শেষে তিনি তার নিজের গ্রামের বাড়িতে তাহিরপুরের বাদাঘাট ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামে স্থায়ী ভাবে বসবাস শুরু করেন এবং বাদাঘাট পাবলিক উচ্চ বিদ‍্যালয়ে মানুষ গড়ার কাজে নিষ্ঠার সাথে আত্মনিয়োগ করে জীবনের পুরোটা সময় সততা, দক্ষতা, পরিচয় দিয়ে তার বর্ণাঢ্য কর্ম জীবনের ইতি টানেন। বাংলাদেশের শেষ প্রান্তে অজপাড়া অঞ্চলে গরিব পরিবারের হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রী কে শুধু আলোর পথ দেখাননি চাকুরী ও কর্মসংস্থানের পথ দেখিয়ে দিয়েছেন অনেককে। বাদাঘাট তথা তাহিরপুর অঞ্চলে তার নিজের হাতে গড়া হাজার হাজার ছাত্র ছাত্রীগণ তাদের প্রিয় শিক্ষক মছদ্দর আলী পীর সাহেবকে শ্রদ্ধায়, ভালবাসায়, বিনম্র চিত্তে মনে রাখবে যুগের পর যুগ।

ব‍্যাক্তিগত জীবনে তিনি একজন সফল পিতা। তিনি ছয় পুত্র , দুই কন‍্যার জনক। তিনি গ্রামে থেকেও নিজের ছেলে মেয়েদের সকলকেই উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত করেছেন এবং তারা সকলেই স্ব স্ব ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত। উনার সহ ধর্মীনি জনাবা তহুরা খাতুন একজন অব: প্রাইমারি শিক্ষক।

অসম্ভব ধৈর্য্যশীল এই মানুষটিকে কখনো ধৈর্য্য হাড়া হতে দেখিনি। চরম বিপদেও তিনি হাসি মুখে কথা বলেছেন। মৃত্যুর কয়েক বছর পূর্বে উনাদের পৈত্রিক পুড়াতন সম্পূর্ন কাঠের দ্বি-তল বাড়ি আগুনে পুড়ে যায় । রাত্রির ঐ আগুনে রহস্য ছিল অনেক, উনারা ঐদিন স্বপরিবারে মারাও যেতে পারতেন। সমস্ত বাড়ি পুড়ে ছাই, শুধু উনার নিজের বন্দুক ও কিছু বই, কাগজ পত্র রক্ষা করতে পেরেছেন । আত্মীয় স্বজন, ছাত্র ছাত্রী ও গ্রামের লোকজন থানায় মামলা করার কথা বলেন, হাসি মুখে তিনি এড়িয়ে গেছেন সব কিছু। উনার বড় ছেলে সেই সময় সিলেট কোতোয়ালি থানার পুলিশের বড় কর্মকর্তা এবং তিনি কোন মামলা করেনি।

তিনি অত্যন্ত ধর্মপরায়ণ ব‍্যাক্তি ছিলেন । ২০১৮ইং সালের ডিসেম্বর মাসের ২৩ তারিখ উনি পবিত্র উমরা পালন শেষে দেশে আসেন। সুস্থ সবল এই মানুষটি উমরা শেষে দেশে ফিরে মাত্র চার মাসের মাথায় আমাদের সবাইকে ছেড়ে চলে গেছেন না ফেরার দেশে। আল্লাহ্ উনাকে সেখানে ভাল রাখুক আর উনাকে বেহেশত নছীব করুন । আমিন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ

  • এই সাইটের  লেখা কপি  করা থেকে বিরত থাকুন।
Design & Development By Hostitbd.Com
error: মামা কপি করা ভালো কাজ না !!