1. admin@amaderjamalganj.com : amaderjamalganj : amaderjamalganj com
রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৪৬ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সাহিত্য বিকাশে মোরা প্রত্যয়দীপ্ত"আমাদের জামালগঞ্জ " হাওর সাহিত্যের আয়না - আপনিও লিখুনঃ আপনিও হয়ে যান আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকার একজন নিয়মিত লেখক।যে কোনো ধরনের গল্প,কবিতা পাঠিয়ে দিন আমাদের কাছে আমরা আপনার লেখাটি আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকায় আপনার নাম উল্লেখপূর্বক প্রকাশ করব। E-mail: amaderjamalganj@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ :
উলামা ঐক্য পরিষদ ও হিলফুল ফুজুল ইসলামি যুব সংঘ আটগাও লাল বাজার’র মানববন্ধন কর্মসূচি সম্পন্ন নিজেকে পুরুষ ভাবতে লজ্জা হয় মুহাম্মদ আবতাহিনুর খাঁন উদয় মধ্যনগর প্রেসক্লাবের সহসভাপতি হলেন হাসুস প্রধান হাওরকবি জীবন কৃষ্ণ সরকার জামালগঞ্জ ছাত্র কল্যাণ পরিষদ কর্তৃক মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত ফাতেমা আক্তারের লেখা কবিতা ধর্ষণ শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী রহ. ও সদরে জমিয়ত আল্লামা আব্দুল মোমিন রাহিমাহুল্লাহ এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা শায়খুল ইসলাম আল্লামা শাহ্ আহমদ শফী রহ. ও সদর্থক জমিয়ত আল্লামা আব্দুল মোমিন রাহিমাহুল্লাহ এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা মানিক মিয়া”র কবিতা ধর্ষণ ঐ অন্ধকার কবরে || মানিক মিয়া জেলে জীবন নিয়ে প্রভাষক (ইংরেজি) মানিক মিয়ার কবিতা

চলমান পরিস্থিতি ও শিক্ষার্থীদের অবস্থা – মোঃ শাহীন পাশা

  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৮ মে, ২০২০
  • ৩৪২ বার পড়া হয়েছে

মার্চ মাস ২০২০ হঠাৎ করে বাংলাদেশের প্রকৃতি বাতাস টা একটা ভাইরাস দ্বারা দূষিত হয়ে পরে ১৭ মার্চ ২০২০ করোনা ভাইরাসের জন্য বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্টান বন্দ করে দেওয়া হয়। আমাদের দেশে ৮০% এর ও বেশি শিক্ষার্থী হবে মধ্যবৃত্ত ও দারিদ্র্য কিন্তু পর্যাপ্ত ব্যবস্তা না থাকায় বাহিরে গিয়ে লেখা পড়া করতে হয়। কিন্তু আমাদের বাংলাদেশের কোন শিক্ষা প্রতিষ্টানেই সকল শিক্ষার্থীরদের আবাসন নিশ্চিত করতে পারে নাই যার ফলে ফ্লাট, বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতে হয়। তাতে সমস্যা নেই কারন আমাদের দেশ এখনও ততটা উন্নতি হয় নাই যে সকল শিক্ষার্থীদের আবাসন নিশ্চিত করতে পারবে। আমাদের দেশে বিশেষ করে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা ৯০% টিউশনির উপর চলে তাদের মেস, বাসা ভাড়া বর্তমানে এইসব শিক্ষার্থীদের বহন করতে হিমশিম খেতে হচ্ছে অনেক পরিবার আছে বর্তমানে তাদের মুখে দৈনিক খাবার টুকু নিতে পাচ্ছে না আবার তারা কিভাবে মেসের টাকা পরিশোধ করবে। আচ্ছা এটা না হয় তাদের পারিবারিক অবস্থা।কিছু দিন আগে দেখতে পেলাম আমাদের প্রতিটা প্রতিষ্টানের শিক্ষক, কর্মচারি তাদের ১, ২ দিনের টাকা সরকারি তহবিলে দান করা হয়েছে কিন্তু আমার একটা প্রশ্ন আপনার ছেলে মেয়েরা যেখানে তাদের মুখে খাবার যোগান দিতে পারছে না সেখানে আপনাদের ভুমিকা টা কতটুকু প্রতিষ্টান গুলো কি সম্ভব ছিলনা একটা দারিদ্র তহবিল গঠন করে শিক্ষার্থীদের কে চিহ্নিত করে তাদের পাশে দারনো। একটা প্রতিষ্টানের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী মিলে একটা পরিবার সুতরাং আগে পরিবারের কথা ভাবছেন।
শিক্ষার্থীদের এই পরিস্থিতিতে মখ্য কোন ভুমিকা কি কোন ইস্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্টান সক্রিয় ভাবে রেখেছে জানা মতে আমার খুব কম যা মোটেও পর্যাপ্ত নয়। তাহলে কি আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্টানের সাথে সম্পর্ক লেখা পড়া ছেয়ে বেশিকিছু নয়।
এখন শুরু করা হচ্ছে অনলাইনে ক্লাস এটা কে আমি জোর গলায় সাধুবাদ জানাই।
কিন্তু যে শিক্ষার্থী নেট কিনারা সামর্থ নেই সে নিয়মিত কিভাবে ক্লাস উপস্থিত থাকবে। এছাড়া গ্রামের নেটওয়ার্কের কথা সবাই জানে তাহলে আমরা কি শহরের একশ্রেনির মানুষদের কে এগিয়ে দিচ্ছি না। যেখানে আমাদের নেটওয়ার্ক ব্যবস্তা শতভাগ নয় সেখানে গ্রামের শিক্ষার্থীরা কতটুকু উন্নতি করতে পারবে তা আমার জানা নেই। কতৃপক্ষ কি আমাদের নেটওয়ার্ক কে ডেভেলপ করে অথবা যদি কোন সিস্টেম থাকে প্রতিটা শিক্ষার্থীর মোবাইলের Ip এড্রেস মধ্যে নেটওয়ার্ক কানেকশন দিয়ে স্পিড ও নেট ফ্রি করে দেওয়া সম্ভব হয় তাহলে মনে করি আমাদের অনলাইন ক্লাস নিয়ে কিছু টা হলেও সাফল্য লাভ করতে পারি। বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণেই পারে একটা মহামারী পরিস্থিতি থেকে জাতি কে বাচিয়ে রাখে।
মোঃ শাহীন পাশা
ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়, কুষ্টিয়া। 

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ

  • এই সাইটের  লেখা কপি  করা থেকে বিরত থাকুন।
Design & Development By Hostitbd.Com
error: মামা কপি করা ভালো কাজ না !!