1. admin@amaderjamalganj.com : amaderjamalganj : amaderjamalganj com
সুনামগঞ্জ ডট কম ও আমাদের ভাবনা -আবু তালহা বিন মনির – আমাদের জামালগঞ্জ
সোমবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২১, ০৭:০৩ অপরাহ্ন
নোটিশ :
সাহিত্য বিকাশে মোরা প্রত্যয়দীপ্ত"আমাদের জামালগঞ্জ " হাওর সাহিত্যের আয়না - আপনিও লিখুনঃ আপনিও হয়ে যান আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকার একজন নিয়মিত লেখক।যে কোনো ধরনের গল্প,কবিতা পাঠিয়ে দিন আমাদের কাছে আমরা আপনার লেখাটি আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকায় আপনার নাম উল্লেখপূর্বক প্রকাশ করব। E-mail: amaderjamalganj@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ :
নারী জাতি // এইচ এম আব্দুল হাকিম জানি না ||| এস ডি সুব্রত আল হেরা আইডিয়াল ইসলামি একাডেমির সবক উদ্বোধন ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন। ছাত্রদলের জামালগঞ্জ উপজেলা ও কলেজ শাখার কমিটি কে অপু- মিনহাজ এর শুভেচ্ছা বার্তা আল হেরা আইডিয়াল ইসলামি একাডেমির সবক উদ্বোধন ও দোয়া মাহফিল সম্পন্ন ইখওয়ানুল মুসলিমিন ইসলামী যুব সংয শান্তিপুর এর উদ্যোগে তাফসীরুল কোরআন মাহফিলের আয়োজন হাওরকবি জীবন কৃষ্ণ সরকারের ৩৪ তম জন্মদিন আজ ওগো প্রেম ||| অজয় কুমার মজুমদার রাণীগঞ্জ সৌদি আরব প্রবাসী সংগঠনের নতুন পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে ঐতিহ্যবাহী জামালগঞ্জ পরিবারের পক্ষ থেকে অসহায়ের মধ্যে বস্ত্র বিতরন

সুনামগঞ্জ ডট কম ও আমাদের ভাবনা -আবু তালহা বিন মনির

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ১৪ মে, ২০২০
  • ১৪৩ বার পড়া হয়েছে

সম্মানিত সুহৃদ ভার্চুয়ালবাসীকে “সুনামগঞ্জ ডট কম”র চতুর্থ বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে জানাই আন্তরিক ফুলেল শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।পথচলার ৪বছর পেরিয়ে,৫বছরে আমরা। ২০১৬ সালের ১৪ই মে দিগেন্দ্র বর্মণ কলেজ,বিশ্বম্ভরপুর এর ইংরেজি প্রভাষক,লেখক-প্রাবন্ধিক,কবি শ্রদ্ধাস্পদ মশিউর রহমান মহোদয়ের হাত ধরে সুনামগঞ্জ ডট কম ফেসবুক গ্রুপের যাত্রা শুরু।শুরু থেকেই জেলার গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তুলে ধরে সুনামগঞ্জের সুনাম বৃদ্ধিতে রেখে যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান।আপন গতিতে সাফল্যের সহিত এগুতে এগুতে আজ পঞ্চম বর্ষে পদার্পণ করে।
সাফল্যের চতুর্থ বর্ষ পেরিয়ে পঞ্চম বর্ষপূর্তি উপলক্ষে তাদের প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি যারা আমাদের গ্রুপে সদস্য ইনভাইট করে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন।লাইক,কমেন্ট এবং শেয়ার করে গ্রুপের মান বৃদ্ধিতে সহায়তা করেছেন।আপনাদের প্রতি আমাদের এডমিন প্যানেল কৃতজ্ঞ।

সুনামগঞ্জ ডট কম পাবলিক গ্রুপ নিয়ে আমাদের আছে সুদূরপ্রসারী ভাবনা।আছে সত্য- সুন্দর এবং ন্যায়ের এক স্বপ্ন।চলুন জেনে নেয়া যাক আমাদের ভাবনা সম্পর্কে।

“সুনামগঞ্জ ডট কম” পাবলিক গ্রুপটি শুধু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমই নয়।সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মকে সাথে নিয়ে “আলোর পথে” স্লোগানটিকে সামনে রেখে আলোকিত সমাজ প্রতিষ্ঠাও এর লক্ষ্য।প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপটি রেখে যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান।
সুনামগঞ্জের শিক্ষা,সাহিত্য,সংস্কৃতি,সমস্যা,সম্ভাবনা,পর্যটন বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরতে গ্রুপটি রেখে যাচ্ছে এক অসামান্য অবদান। এক কথায় হাওরকন্যা সুনামগঞ্জকে বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরাই এর মূল লক্ষ্য।
সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপটি সামাজিক সমস্যা সমাধানে রেখে যাচ্ছে গুরুত্বপূর্ণ অবদান।সমাজের অসহায়-দরিদ্র মানুষের পাশে দাড়িয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে।
সমাজের দরিদ্র শিক্ষার্থীদের সমস্যা গুলো সমাজের বিত্তশালীদের নিকট তুলে ধরছে এই গ্রুপ।এই গ্রুপের মাধ্যমে তথ্য নিয়ে সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিবর্গ সমাজের দরিদ্র শিক্ষার্থীদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন।সমাজের দরিদ্র মানুষের বিভিন্ন সমস্যাগুলো তুলে ধরে সমাজের বিত্তবান ব্যক্তিবর্গের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে।এখান থেকে বিত্তবান ব্যক্তিবর্গ দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়ানোর সুযোগ পাচ্ছেন।এছাড়াও রক্তদান সংগ্রহে গ্রুপটি অসামান্য অবদান রেখে যাচ্ছে।এই গ্রুপের মাধ্যমে রক্তদাতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে রক্তসংগ্রহ কাজে গ্রুপটি রেখে যাচ্ছে আরেক অসামান্য অবদান।তথ্য প্রযুক্তির এই দিনে সর্বপ্রকার গুরুত্বপূর্ণ খবরা-খবর পৌঁছে দিচ্ছে সবার ধারে ধারে।ঘরে বসেই সদস্যরা আজ এই গ্রুপের মাধ্যমে জানতে পারছেন গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য।জানতে পারছেন দেশ-বিশ্বের সব গুরুত্বপূর্ণ খবরা-খবর।
এই গ্রুপের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অবদান হচ্ছে জেলার সৃজনশীল তরুণ,আলোকিত ব্যক্তিদের তোলে ধরা।জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের নবাগত কবি-লেখক,আলোকিত ব্যক্তিদের সবার সামনে তুলে ধরছে সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপ।

এভাবেই একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে যাচ্ছে সুনামগঞ্জ ডট কম।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এসকল গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় এমবিএস কর্তৃক সুনামগঞ্জ ডট কম পেয়েছে সম্মাননা স্মারক।
সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপের উপদেষ্টা ও সিনিয়র এডমিন,সুনামগঞ্জের মানবিক সব কাজগুলোতে যার বিচরণ,ফাইনাসিয়াল ইনক্লুসিন ডিভিশন,ডাচ-বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এর এসসিও শ্রদ্ধাস্পদ আশরাফ হোসেন লিটন ভাই ( Ashraf Hossain Liton ) ,প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান এডমিন,মানবিক ব্যক্তিত্ব, কবি ও প্রাবন্ধিক শ্রদ্ধাস্পদ মশিউর রহমান মহোদয়( Moshiur Rahman ),আইটি এডমিন শ্রদ্ধাস্পদ মোহাম্মদ আতাউল করিম ভাই’র ( Mohammad Ataul Karim ) আন্তরিক প্রচেষ্টায় এডমিন জাকির হুসেন রাজু ( Jakir Hussan Raju ),এডমিন আব্দুস সামাদ আফিন্দী নাহিদ ( Abdus Samad Afindi Nahid ),এডমিন আশিষ রহমান( Ashish Rahman ) এবং এডমিন আবু তালহা বিন মনির ( Abu Talha Bin Monir ) আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন গ্রুপটিতে।

উপদেষ্টা ও সিনিয়র এডমিন,শ্রদ্ধেয় আশরাফ হোসেন লিটন ভাই গ্রুপটি নিয়ে দেখে যাচ্ছেন অনেক স্বপ্ন।সমাজের অসহায় দরিদ্র মানুষের সাহাযার্থে যেন গ্রুপটি সবসময় পাশে থাকে এটাই উনার মূল লক্ষ্য।তিনি চান সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মকে সাথে নিয়ে আলোকিত সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সমাজে জেগে উটুক মানবতা।শ্রদ্ধেয় আশরাফ হোসেন লিটন ভাই বলেন- অামি স্বপ্ন বিলাসী নই, কিন্তু স্বপ্ন দেখি নিরন্তর।
অামরা নেতিবাচক যে কোনো বিষয়কে যে ভাবে হাইলাইটস করি, ইতিবাচক বিষয়কে সে ভাবে তা করি না। কোনো এক দিন এ দেশের প্রতিটি মানুষ সত্যিকারের মু্ক্তিযোদ্ধের চেতনা ধারণ করবে তার বুকের গভীরে অন্তরের বদ্ধমূলে। মানুষ অাত্নহারা হবে অর্থননৈতিক মুক্তির উল্লাসে।থাকবেনা কোনো দূর্নীতি,শোষণ নিপীড়ন। সোনার বাংলায় সম্প্রীতির বন্ধনে মানুষ থাকবে একে অন্যের সাথে ভালবাসার মায়ার বন্ধনে।থাকবেনা কোনো হিংসা, বিদ্বেষ, দ্বন্দ্ব অার অহংবোধের দাম্বিকতা।সেই দিনটি এনে দেবে অামাদের নতুন প্রজন্ম।
উক্ত কথাগুলোর মাধ্যমে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন উনার ভাবনা সম্পর্কে।শুধু তাই নয়,শ্রদ্ধেয় আশরাফ হোসেন লিটন ভাই একজন মানবতাবাদী ব্যক্তি।সমাজের অসহায় দরিদ্র মানুষের জন্য উনার মমত্ববোধ অনন্য।চেষ্টা করেন এসব মানুষের জন্য কিছু একটা করার এবং সাধ্যমতো করেও যাচ্ছেন।আর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপটিকে নিয়ে স্বপ্ন দেখছেন সুদূরপ্রসারী।সমাজের অসহায় দরিদ্র মানুষের সাহাযার্থে যেন গ্রুপটি সবসময় এগিয়ে থাকে।বিভিন্ন সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান,লেখালেখির মাধ্যমে সমাজের বিপথগামী তরুণ প্রজন্মকে যেন সচেতন করে তুলতে গ্রুপটি এগিয়ে থাকে। সচেতন,মানবতাবাদী একজন ব্যক্তি হিসেবে তিনি আমাদের প্রেরণার প্রতীক।উনার উৎসাহ-উদ্দীপনা,আর দিকনির্দেশনার মাধ্যমে এগিয়ে যাবে এই গ্রুপ।

প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান এডমিন শ্রদ্ধেয় মশিউর রহমান মহোদয় গ্রুপটি নিয়ে দেখছেন সুদূর প্রসারী স্বপ্ন।
সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মকে সাথে নিয়ে তিনি এই গ্রুপের মাধ্যমে এক আলোকিত সমাজের স্বপ্ন দেখছেন।তাই তিনি একঝাঁক সৃজনশীল তরুণকে সাথে নিয়ে সুনামগঞ্জ ডট কমের যাত্রা শুরু করেন।সৃজনশীল তরুণ প্রজন্মকে সাথে নিয়ে কল্যাণমূলক প্লাটফর্ম প্রতিষ্ঠাই উনার মূল ব্রত।তিনি স্বপ্ন দেখছেন এই গ্রুপের মাধ্যমে সারাবিশ্বের কাছে সুনামগঞ্জের সৌন্দর্য্য তথা সুনামগঞ্জকে তুলে ধরা।বিশ্ববাসী যেন এই গ্রুপের মাধ্যমে হাওরকন্যা সুনামগঞ্জকে চিনতে ও জানতে পারে।এতে করে বিশ্বের বুকে সুনামগঞ্জ হয়ে উঠবে আলোচিত একটি নাম।ফলশ্রুতিতে সুনামগঞ্জ হয়ে উঠবে এক অনন্য পর্যটন কেন্দ্র।চারদিকে ছড়িয়ে পড়বে সুনামগঞ্জের সুনাম।
শ্রদ্ধেয় মশিউর রহমান মহোদয় বলেন-
বর্তমান তথ্য প্রযুক্তির যুগে সামাজিক যোগাযোগের জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুকে “আলোর পথে” শ্লোগানে তরুণ প্রজন্মকে সম্পৃক্ত করে ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহার করে, একটি আলোকিত সমাজ গঠনের লক্ষ্যে ২০১৬ সালের ১৪ মে সুনামগঞ্জ ডট কম নামে একটি গ্রুপ চালু করেছিলাম মূলত নিজ জেলা সুনামগঞ্জ কে দেশ বিদেশে তুলে ধরার জন্যে। গ্রুপটি সুনামগঞ্জের ইতিহাস, ঐতিহ্য, শিক্ষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি, পর্যটন, মুক্তিযুদ্ধ, কৃতী ব্যক্তি, উন্নয়ন, সম্ভাবনা, তরুণ প্রজন্মকে আলোর পথে টেনে আনতে মোটিভেশনাল পোস্ট, মানবিক আবেদন,কোনো দুর্যোগ বা মহামারীকালীন সময়ে সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে এবং শহরের বিভিন্ন রক্তদান সংগঠনের পাশে থেকে রক্তদানের মতো মহৎ কাজ করাই মূল লক্ষ্য।
মহোদয়ের উক্ত কথাগুলো থেকেই আমরা বুঝতে পারি এই গ্রুপ নিয়ে উনার সুদূর প্রসারী স্বপ্নেথ কথা।
সচেতন ও মানবতাবাদী ব্যক্তি হিসেবে তিনিও আমাদের প্রেরণার প্রতীক।উনার এই গ্রুপ প্রতিষ্ঠার মতো উদ্যোগ হাতে নেয়ার মাধ্যমে এই গ্রুপের মাধ্যমে সাধারণ মানুষ সামান্য হলেও উপকৃত হচ্ছে।উনার এই উদ্যোগের মাধ্যমে সুনামগঞ্জের সুনাম ছড়িয়ে পড়ছে চারদিকে।এই উপকারের সবটুকু কৃতিত্ব শ্রদ্ধেয় মশিউর রহমান মহোদয়ের।
উনার উৎসাহ-উদ্দীপনা আর দিক নির্দেশনাতেও এগিয়ে যাবে এই গ্রুপ।

আইটি এডমিন শ্রদ্ধেয় আতাউল করিম ভাইয়ের স্বপ্ন আরো সুদূরপ্রসারী।বর্তমানে অনলাইনে অনেকেই বিভিন্ন সাইটে কাজ করে অর্থের জোগান দিচ্ছেন।অনেক শিক্ষিত বেকার বিভিন্ন অনলাইন সাইটে কাজ করে বেকারত্ব হ্রাস করছে।তাই উনার ভাবনা এই গ্রুপটির মাধ্যমে একটি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা।যার মাধ্যমে অল্প হলেও বেকারত্ব কমিয়ে সমাজ তথা দেশের জন্য অবদান রাখা যাবে।
গ্রুপের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে তিনি সুনামগঞ্জ নিয়ে উনার ভাবনা প্রকাশ করেন-
পরিবর্তিত বিশ্ব পরিস্থিতি এবং বাংলাদেশের আর্থসামাজিক প্রেক্ষাপট বিবেচনা করে সুনামগঞ্জে কিছু বিষয়ে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কিছু কাজ করা যেতে পারে। আমি দুটি বিষয় উল্লেখ করতে চাই এখানে।

প্রথমত যে বিষয়টি আলোকপাত করতে চাচ্ছি তা এই সময়ের সবচেয়ে আলোচিত স্বাস্থ্যসেবা নিয়ে। স্বাস্থ্যসেবায় সুনামগঞ্জ, জেলা শহর হিসাবে অনেক পিছিয়ে। চিকিৎসক সংকট এর প্রধান কারণ। নার্স এবং স্বাস্থ্যকর্মীর সংকট এই সেবাখাতকে বিপর্যস্ত করেছে। এলাকার মানুষ বঞ্চিত হচ্ছে প্রাপ্য সেবা থেকে। সেবা নিতে অসুস্থ ব্যক্তিদের যেতে হচ্ছে সিলেটে। এতে করে অনেক সময় অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে। সবাই জানেন সুনামগঞ্জে একটি মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠার কাজ চলমান রয়েছে। এটি চালু হলে সেবার মান বৃদ্ধি পাবে আশা রাখি। মেডিকেল কলেজ চালু করার আগ পর্যন্ত সদর হাসপাতালের কার্যক্রম আরো গতিশীল করার পাশাপাশি জেলায় একটি নার্সিং ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করা হলে তা স্বাস্থ্যসেবায় আরো কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে আশা করি।

দ্বিতীয়ত- হাওর অধ্যুষিত সুনামগঞ্জ জেলায় শিক্ষার হার তুলনামূলকভাবে দেশের অন্যান্য জেলা থেকে কম। এর অন্যতম কারণ হাওর বেষ্টিত গ্রামগুলোতে স্কুল,কলেজের অপ্রতুলতা। মাইলের পর মাইল পথ অতিক্রম করে ছাত্র ছাত্রীদের স্কুল, কলেজে যেতে হয়। এক ফসলী এই অঞ্চলের কৃষক পরিবারগুলো তাই ছেলেমেয়েদের স্কুল, কলেজে পাঠাতে উৎসাহ বোধ করেন না। পরিবারের আয়, উপার্জনে ছেলেমেয়েরা যুক্ত হয়ে যায় খুব অল্প বয়সে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণের একটা উপায় হতে পারে মানসম্মত কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করা। আমরা জানি কারিগরি জ্ঞানে শিক্ষিত ছেলেমেয়েরা সমাজের জন্য বোঝা না হয়ে তাদের লব্ধ জ্ঞান কাজে লাগিয়ে পরিবারের উপার্জনে বড় ভূমিকা রাখতে পারে।

পরিশেষে- সুনামগঞ্জে একটি নার্সিং ইন্সটিটিউট এবং একটি পলিটেকনিক ইন্সটিটিউট স্থাপনের দাবী উত্থাপন করছি। আশা করছি এর মাধ্যমে ভবিষ্যতে কর্মদক্ষ জনশক্তি তৈরি করা সম্ভব হবে।
তাহলে উনার ভাবনার মধ্যেও একটি আলোকিত সুনামগঞ্জের স্বপ্ন প্রতিয়মান।পরিবর্তিত বিশ্বে সুনামগঞ্জকে এগিয়ে নিয়ে যেতে অত্যন্ত সাবলীলভাবে উনার ভাবনা পেশ করেছেন।

দেখা যাচ্ছে-আমরা তরুণ প্রজন্ম এই গ্রুপের মাধ্যমে এমন তিনজন ব্যক্তির সন্ধান পেয়েছি।যাদের চিন্তা-চেতনা,ভাবনা,স্বপ্ন সম্পূর্ণ মানবতার পক্ষে।হাওরকন্যা সুনামগঞ্জকে পরিবর্তিত বিশ্বে একটি আলোকিত জেলা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা।
উনাদের সূদূরপ্রসারী ভাবনা আমাদের তরুণ প্রজন্মকে উৎসাহিত করে।অনুপ্রেরণা জোগায় সত্য-ন্যায়ের।মানবতার সেবায় এগিয়ে যেতে প্রেরণা দান করে।উনারাই আমাদের তরুণ প্রজন্মের প্রেরণার প্রতীক।উনাদের প্রেরণায় আমরা তরুণ প্রজন্ম স্বপ্ন কুড়িয়ে বেড়াই।

এভাবেই উপদেষ্টা ও সিনিয়র এডমিন এবং প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান এডমিন এবং আইটি এডমিন’র স্বপ্ন বাস্তবায়নে উনারা তিনজন সহ বাকী চারজন এডমিন আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন সুনামগঞ্জ ডট কম গ্রুপটিতে।কল্যাণমূলক সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে মানবতার বাণী দিকে দিকে ছড়িয়ে দেয়াই আমাদের মূল ব্রত।হাওরকন্যা সুনামগঞ্জের সৌন্দর্য্যের সুনাম বৃদ্ধির লক্ষ্যে আমাদের যাত্রা।আমরা বিশ্বাস করি একমাত্র সচেতন তরুণ প্রজন্মই সমাজ তথা দেশগঠনে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে।তাই আমরা তরুণ এই প্রজন্মের কানে কানে পৌঁছে দিতে চাই মানবতার বাণী।যদি তরুণ প্রজন্ম মানবতার দিকে ধাবিত হয়।ফলশ্রুতিতে সমাজ থেকে দূর হবে হিংসা-বিদ্বেষ,অহংকার,অন্যায়-অবিচার।
প্রতিষ্ঠিত হবে মানবতা ও সাম্য।দক্ষিণা বাতাস নিয়ে আসবে শান্তির বার্তা।
পরিশেষে- আমাদের গ্রুপে সংযুক্ত প্রায় ২৩হাজার সদস্যকে আবারো জানাই বর্ষপূর্তির শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।আপনাদের আন্তরিকতার ফলে এগিয়ে যাবে সুনামগঞ্জ ডট কম।তাই গ্রুপে লাইক,কমেন্ট,শেয়ার এবং সদস্য ইনভাইট করে আমাদের সাথেই থাকুন।
ধন্যবাদ সবাইকে।

লেখক-
আবু তালহা বিন মনির
এডমিন
সুনামগঞ্জ ডট কম

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই রকম আরো সংবাদ

  • এই সাইটের  লেখা কপি  করা থেকে বিরত থাকুন।
Design & Development By Hostitbd.Com
error: মামা কপি করা ভালো কাজ না !!