1. abdussamadafindi98@gmail.com : Abdus Samad Afindi Nahid : Abdus Samad Afindi Nahid
  2. admin@amaderjamalganj.com : amaderjamalganj : amaderjamalganj com
বিকাশ এজেন্টের সঙ্গে প্রতারণা – আমাদের জামালগঞ্জ
রবিবার, ০১ অগাস্ট ২০২১, ১১:০৬ পূর্বাহ্ন
নোটিশ :
সাহিত্য বিকাশে মোরা প্রত্যয়দীপ্ত"আমাদের জামালগঞ্জ " হাওর সাহিত্যের আয়না - আপনিও লিখুনঃ আপনিও হয়ে যান আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকার একজন নিয়মিত লেখক।যে কোনো ধরনের গল্প,কবিতা পাঠিয়ে দিন আমাদের কাছে আমরা আপনার লেখাটি আমাদের জামালগঞ্জ সাহিত্য পত্রিকায় আপনার নাম উল্লেখপূর্বক প্রকাশ করব। E-mail: amaderjamalganj@gmail.com
শিরোনাম :
ভীমখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষক মৌঃ জাকির হোসেন আর নেই জামালগঞ্জে প্রথম আইসিটি জেলা এম্বাসেডর হলেন মনির হোসেন জামালগঞ্জে সুদীপ্ত তরুণ”লম্বাবাকঁ উদ্যোগে ভাঙ্গা রাস্তা মেরামত ফেনারবাঁক ইউপিবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সুব্রত পুরকায়স্থ  জামালগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ইয়াসিন আরাফাত এর ঈদ শুভেচ্ছা বার্তা ভীমখালি ইউনিয়ন বাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ফুজায়েল আহমেদ তালহা মানিগাঁও আত- তাক্বওয়া ইসলামি যুব সংঘের ঈদ সামগ্রী বিতরণ ভীমখালি ইউপিবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন আক্তারুজ্জামান তালুকদার দেহ থেকে প্রাণ গেলেই তুমি লাশ মোহাম্মদ আফজাল হোসেন ফেনারবাঁক ইউপিবাসীকে ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অজিত কুমার রায়

বিকাশ এজেন্টের সঙ্গে প্রতারণা

  • আপডেট সময় : বুধবার, ৪ নভেম্বর, ২০২০
  • ৯৯ বার পড়া হয়েছে

পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে মোবাইল ব্যাংকিং সেবা প্রতিষ্ঠান বিকাশের এজেন্টের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে প্রতারক চক্রের এক সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার (১ নভেম্বর) রাতে উপজেলার বটতলা এলাকা থেকে মো. মিজান মীরা (৪০) নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়।

অভিযুক্ত মিজান মীরা উপজেলার দক্ষিণ মির্জাগঞ্জ গ্রামের মো. সোবাহান মীরার ছেলে। ভুক্তভোগী বিকাশ এজেন্ট হলেন বটতলা এলাকার মো. রাসেল। তিনি ওই রাতেই মির্জাগঞ্জ থানায় মিজান মীরা ও কাকড়াবুনিয়া ইউনিয়নের কালাগাছিয়া গ্রামের মো. ফেরদৌস আলম ছগীর (৪৫) কে আসামি করে মির্জাগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ওই রাতে মিজান তার টাকা আসবে বলে রাসলের দোকানে গিয়ে তার বিকাশ নম্বর চান। বিকাশ নম্বর দেওয়ার পরে রাসেলের বিকাশ নম্বরে ৪-৫টি মেসেজ আসে। মেসেজে আসা পিন নম্বরগুলো দোকানদারের কাছে জানতে চান মিজান। পিন নম্বর দিতে রাজি না হলে কিছুক্ষণ পর দোকানদারের নম্বরে ফোন আসে। ফোন রিসিভ করলে বিকাশ কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে বলা হয়, পিন নম্বর না দিলে তোমার (রাসেলের) বিকাশ নম্বর ৯ মাস ৯ দিন বন্ধ করে দেওয়া হবে। এক পর্যায়ে সন্দেহ হলে রাসেল পুলিশকে খবর দেয়। তখন মির্জাগঞ্জ থানার এসআই সুমন মজুমদার মিজানকে গ্রেফতার করে।

মির্জাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম আর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, ‘মিজানকে জিজ্ঞেসাবাদ করা হয়েছে। সে জানিয়েছে, এর আগে প্রতারণার মাধ্যমে তারা এভাবে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে ২-৩ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। ছগীরের নির্দেশনায় এসব কাজ করে বলে জানিয়েছে সে। মিজানকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। ছগীর ঘটনার পর থেকে পলাতক রয়েছে। তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই রকম আরো সংবাদ
  • এই সাইটের  লেখা কপি  করা থেকে বিরত থাকুন।
Design & Development By Hostitbd.Com
error: মামা কপি করা ভালো কাজ না !!